মেনু নির্বাচন করুন

খাল-বিল

আমাদের এলকায় কোন নদী নেই । তবে আছে গর্ব করে বলার মতো খাল বা বিল সম্পর্কে । আমাদের এই এলাকায় বেশ বড় আর গভীর খাল ও বিল লক্ষ করা যায় । ঐতিহ্যবাহি কালিগ্রাম বিল হতে একটি খাড়ি বা স্থানীয় লোকজনদের ভাষায় ডাড়া বটতলা বাজারের সামান্য উত্তর দিক দিয়ে গোবিন্দপাড়া এলকায় প্রবেশ করেছে যা বটতলা বাজারের ধার ঘেষে রামপুর ও পাথার গ্রামের দক্ষিন দিক দিয়ে পুর্ব দিকে প্রবাহিত হয়েছে । এর দুটি শাখা দুই দিকে প্রবাহিত হয়েছে । এর একটি বানইল ও মাড়িয়া গ্রামের মধ্যে দিয়ে দক্ষিনে প্রবাহিত হলে জিয়াপাড়া ও মাড়িয়া গ্রামকে পৃখত করে যা হড়ম বিলে প্রবেশ  করেছে ।  এরই ধারাবাহিকতায় এই খাড়িটির আর একটি শাখা রামপুর ও পাথার গ্রামের দক্ষিন ধার ঘেষে  আরও পুর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে হাতরুম ও শান্তিপাড়া গ্রামকে পৃখত করেছে । এরই প্রেক্ষিতে এই শাখাটি বেশ চওড়া ও প্রসস্ত হয়ে গোবিন্দপাড়া জিল্লুর মোড় হতে সামান্য উত্তর দিকে ছেদ করলে দামনাশ ও গোবিন্দপাড়া গ্রামের মাঝখানে এক বিশাল অবস্থান সৃষ্টি করে  । এই শাখাটি আরও পুর্ব দিকে ধাবিত হয়ে বোয়ালিয়া ও দেওপাড়া,বিলমাললী গ্রামের প্রান্তদেশে বিশাল ও বিস্তৃত বলয়ের আকার ধারন করে ।এরপর তা আরও পুর্দিকে প্রবাহিত হয়ে নরদাশ ইউনিয়নে িপ্রবেশ করে । বিক্ষিপ্ত ও বিস্তৃত এই বিল ও খাল আমাদের বিশেষ সুবিধা বহন করে । সারা বছর পানি থাকে এমন খাল বা বিলের সংখ্যা খব কম । তবে হড়মবিল,কালিগ্রাম বিল,বোয়িালিয়া দও ইত্যাদি বিল সারা বছর পানিতে নিমজ্জিত খাকে যাতে আমাদের আমিষের চাহিদা পরনে সক্ষম । এছাড়াও বর্ষাকালে বন্যা হলে এই এলাকার জমিতে প্রচুর পলিমাটি সঞ্চিত হয় যা আমাদের কৃষকদের বোরো মৌসুমে ধানের ব্যাপক ফলন সৃষ্টিতে সহা্যয়তা করে । সর্বপরি আমাদের খাল ও বিল আমাদের এই এলকার মানুষের জীবন ও সংস্কৃতির সাথে মিশে আছে যার অবদান অনসীকার্য ।